Foto

অভিশংসন: সিনেটে ট্রাম্পের আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু


মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে দেশটির কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে।


Hostens.com - A home for your website

বিবিসি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার ও কংগ্রেসের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগ পড়ে শোনানো হয়। এর পর সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি জন রবার্টস সিনেট সদস্যদের শপথ পড়িয়েছেন।

অভিশংসনের বিচারে সিনেটের ১০০ সদস্য জুরির ভূমিকায় থাকবেন বলে খবরে জানা গেছে। প্রতিনিধি পরিষদে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হবে কিনা; শুনানির পরেই জুরিরা সেই সিদ্ধান্ত নেবেন।

ট্রাম্পের বিচারে সিনেটের সার্জেন্ট অ্যাট আর্মস মাইকেল সি স্টেনজার উচ্চকক্ষের কার্যক্রম শুরু করেন। এর পর ডেমোক্র্যাট কংগ্রেসম্যান ও মামলার প্রধান বাদী অ্যাডাম স্কিফ প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে অভিযোগ পড়ে শোনান।

প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দাবিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান স্কিফ ছাড়াও প্রতিনিধি পরিষদের বিচার বিভাগীয় কমিটির প্রধান জেরোল্ড নেডলার, নিউইয়র্কের হাকিম জেফ্রিস, ক্যালিফোর্নিয়ার জো লফগ্রেন, কলোরাডোর জেসন ক্রো, ফ্লোরিডার ভালো ডেমিংস এবং টেক্সাসের সিলভিয়া গার্সিয়া সিনেটের এ বিচারে বাদীর ভূমিকায় থাকবেন।

অভিযোগ পড়ে শোনানোর পর প্রধান বিচারপতি রবার্টস সিনেটরদের নিরপেক্ষভাবে বিচার করতে শপথ পড়ান।

এর পর সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশের নেতা মিচ ম্যাককনেল প্রেসিডেন্টের অভিশংসন বিচারের কার্যক্রম মঙ্গলবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টা পর্যন্ত মুলতবি ঘোষণা করেন।

এদিকে গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর হাউসে ট্রাম্পের অভিশংসন বিতর্ক শুরুর মুহূর্তে রিপাবলিকানরা এমনটি ফলাও করে প্রচার করেছে যে, অভিশংসন কীভাবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারের অর্থায়নের জন্য সুবিধা তৈরি করে দিচ্ছে।

বলা হচ্ছে, এতে সমর্থকরা আগের চেয়েও তাদের প্রেসিডেন্টের পাশে বেশি শক্তি নিয়ে অবস্থান করবেন। তবে ডেমোক্র্যাটরা বলছেন, এ অভিশংসন ট্রাম্পের ভাবমর্যাদাকে কলঙ্কিত করবে। ফলে ভোটাররা তাকে ভোট দিতে গিয়ে সংকোচে পড়বেন।

জরিপের ফল বলছে— ট্রাম্পের সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রের মানুষের পক্ষে ও বিপক্ষের মতামত অভিশংসনসংক্রান্ত গত কয়েক মাসের নাটকে খুব একটা পরিবর্তন হয়নি।

বলা যায়, এ বিতর্ক ওঠার আগে আগামী বছরের নির্বাচনে যে রকম হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা ছিল, সে রকম এখনও লড়াই হবে।

১৯৮৯ সাল থেকে অভিশংসিত হওয়া দুই মার্কিন প্রেসিডেন্টের কেউই তাদের চাকরি থেকে বরখাস্ত হননি। ১৮৬৮ সালে অ্যান্ড্রু জনসন ও ১৯৯৮ সালে বিল ক্লিনটনকে প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসন করা হয়েছিল।

Facebook Comments

" বিশ্ব সংবাদ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ

Web Hosting and Linux/Windows VPS in USA, UK and Germany

Visitor Today : 48

Unique Visitor : 134643
Total PageView : 144665