এই-মেয়েটি-রিকশা-গার্ল

এই মেয়েটি রিকশা গার্ল


মেয়েটির নাম নাইমা। স্বাধীনচেতা দুরন্ত এক কিশোরী। রিকশাচালক পিতার বড় মেয়ে সে। মফস্বলে বেড়ে ওঠা নাইমার জীবন রঙ তুলির মতই বর্ণিল। সমস্ত রঙ মিলেমিশে সেই তুলি দিয়ে অংকিত হয় সুন্দর সুন্দর সব আলপনা। নাইমা আলপনা এঁকে অল্প উপার্জন করেন। তাতে তার পরিবারের দুর্দশা দূর হয় না। চোখে স্বপ্ন নিয়ে বাসা থেকে বেরিয়ে পড়ে সে। শুরু হয় নতুন নতুন সব অভিজ্ঞতা। শুরু হয় রিকশাকন্যার সাহসী যাত্রা।


Hostens.com - A home for your website

রিকশা গার্লের সাহসী এই যাত্রা নিয়েই অমিতাভ রেজা চৌধুরী নির্মাণ করছেন তার দ্বিতীয় ছবি ‌’রিকশা গার্ল’। এতে প্রধা চরিত্রে অভিনয় করেছেন নভেরা চৌধুরী।

গল্পের প্রয়োজনে বস্তির একটি সেটের প্রয়োজন হয় রিকশা গার্লের। তাই শতাধিক বস্তিঘর তৈরি করার মাধ্যমে নিয়ে আসা হয়েছে বস্তির সত্যিকার অবয়ব। গাজীপুরের ১০৫ একর জমির ওপর গড়ে উঠা বঙ্গবন্ধু ফিল্ম সিটি তৈরি করা হয়েছে সেই বস্তি। যে বস্তিতে শোভা পাচ্ছে দোকানপাট, রিকশা গ্যারেজ, এখানে-ওখানে এঁটে রাখা সিনেমার পোস্টার আরও কত কী!

মিতালী পার্কিন্স এর বেস্টসেলার বই রিকশা গার্ল অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে ছবিটি। এতে অভিনয় অভিনয় করছেন মোমেনা চৌধুরী, গুলশান আরা চম্পা, নরেশ ভূঁইয়া,নাসির উদ্দিন খান, এলেন শুভ্র, রূপকথা, অশোক বেপারীসহ আরও অনেকেই।

"আমরা সবসময়ই মানসম্পন্ন সিনেমা নির্মাণের চেষ্টা করি এবং এখন বাংলাদেশেই আন্তর্জাতিক মানের সিনেমা নির্মিত হচ্ছে। আমরা এমন সব সিনেমা বানাতে চাই যা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের নামকে উজ্জ্বল করবে। বাংলাদেশে সাধারণত আমরা দেখি বস্তির শুটিংয়ের প্রয়োজন হলে সবাই বস্তির দিকে ছুটে যায়। কিন্ত গল্পের প্রয়োজনে আমরা শতাধিক বস্তিঘর নির্মাণ করে নিজেরা বস্তির অবয়ব দিয়ে সেট বানিয়েছি। এছাড়াও আমরা বাংলাদেশের কিছু প্রত্যন্ত অঞ্চলে সিনেমার শুটিং করেছি।’ ছবিটির শুটিং সেট থেকে কথাগুলো সমকাল অনলাইনকে জানালেন অমিতাভ রেজা। যিনি বাংলাদেশের সুনামধন্য বিজ্ঞাপন নির্মাতা হিসেবে খ্যাতি কুড়িয়েছেন।

Facebook Comments