ফিলিস্তিন-কোনো-পণ্য-নয়-যে-বেচাকেনা-হবে

ফিলিস্তিন কোনো পণ্য নয় যে, বেচাকেনা হবে


ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ বলেছেন, জেরুজালেম যুক্তরাষ্ট্রের নিজস্ব কোনো সম্পদ নয় যে, সে দিয়ে দেবে এবং ইসরাইলেরও কোনো বিষয় নয় যে, সে নিয়ে নেবে। পবিত্র এই নগরী কোনো পণ্য নয় যে, কেউ তা বেচাকেনা করবে। এটি একমাত্র ফিলিস্তিনিদের উত্তরাধিকার এবং তা তাদেরই থাকবে।


Hostens.com - A home for your website

বুধবার সন্ধ্যায় তেহরানে নিযুক্ত মুসলিম দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতদের সম্মানে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে জারিফ এসব কথা বলেন।

ফিলিস্তিন বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের পরিকল্পনায় কয়েকটি আরব দেশের সমর্থনকে বেদনাদায়ক উল্লেখ করে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ বলেছেন, আল কুদস মুসলমানদের প্রথম কেবলা এবং অসংখ্য নবী-রাসুলের স্মৃতিবিজড়িত সম্মানিত স্থান। যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল মিলে আল কুদস নিয়ে যে লজ্জাজনক পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে, দুঃখজনকভাবে কয়েকটি আরব দেশও তাতে সমর্থন দিচ্ছে। এটি অত্যন্ত বেদনাদায়ক বিষয়।

এর আগে টুইটারে দেয়া এক পোস্টে ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অধিকৃত জেরুজালেম ফিলিস্তিনিদের নিজস্ব সম্পদ।ফিলিস্তিন সম্পর্কে ইহুদিবাদী ইসরাইল বা যুক্তরাষ্ট্রের কোনো সিদ্ধান্ত দেয়ার এখতিয়ার নেই।

প্রসঙ্গত ফিলিস্তিন ও ইসরাইলে শান্তি প্রতিষ্ঠায় নতুন ফর্মুলা পেশ করতে যাচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইসরাইলের একটি সংবাদমাধ্যমে এটিকে ’শতবর্ষী বা শতাব্দীর সেরা সমঝোতা’ শিরোনামে এ পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করা হয়। চুক্তিটি বর্তমানে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর কাছে রয়েছে। আর এটি যদি বাস্তবায়িত হয়ে তা হলে বদলে যাবে ফিলিস্তিনের নাম।

এতে ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের নতুন নাম হবে ’নতুন ফিলিস্তিন,’ যেটি প্রতিষ্ঠিত হবে জুডিয়া, সামারিয়া (পশ্চিমতীর) এবং গাজা এলাকা নিয়ে। একই সঙ্গে ব্যতিক্রম হবে ইসরাইল পশ্চিমতীরে বসতি স্থাপন করবে।

দখলমুক্ত ভূমি নিয়ে বলা হয়েছে, পশ্চিমতীরে অধিকৃত ইসরাইলি ভূমি এবং অন্যান্য বিচ্ছিন্ন ভূমি ইসরাইলের দখলে থাকবে।

এ ছাড়া জেরুজালেম নিয়ে চুক্তিতে বলা হয়েছে, জেরুজালেম পৃথক বা ভাগ হবে না। এটি ইসরাইল এবং নতুন ফিলিস্তিন উভয়েই রাজধানী হিসেবে ব্যবহার করবে। আরবের নাগরিকরা জেরুজালেমে নতুন ফিলিস্তিনের নাগরিক হবেন।

Facebook Comments

" বিশ্ব সংবাদ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ

Web Hosting and Linux/Windows VPS in USA, UK and Germany

Visitor Today : 5

Visitor Yesterday : 30

Unique Visitor : 148443
Total PageView : 154408